> পিসি বাংলাদেশ~ PC BANGLADESH

শুক্রবার, ২৩ জুলাই, ২০২১

Lenovo Laptop IP 300 Intel Core I3 6th Gen. 6100U, Black

 This Lenovo PC IP 300 Intel Core i3 sixth Gen. 6100U, Black is the most recent innovation PC. It has 14" screen with LED Display. It has 2.30 GHz processor with 4GB RAM. It has 1 TB HDD. It has 4 hrs Battery Backup time. It has 1 Year guarantee from Lenovo. You can utilize this PC all over.

Lenovo Laptop


SPECIFICATIONS:

  • Brand: Lenovo
  • Model: Lenovo IP 300
  • Processor: 6th Gen. Intel Core i3 6100U
  • Clock speed: 2.30GHz
  • Cache: 3MB
  • Display size: 14"
  • Display type: LED Display
  • RAM: 4GB
  • RAM type: DDR3L
  • Storage: 1TB HDD
  • Graphics chipset: Intel HD 520
  • Graphics memory: Shared
  • Optical device: DVD-RW
  • Display port: HDMI, VGA
  • Audio port: Combo
  • USB port: 1 x USB3.0, 2 x USB2.0
  • Battery: 4 Cells Li-Cylindrical
  • Backup time: Up to 4 Hrs.
  • Operating system: Free Dos
  • Weight: 2.10Kg
  • Others: LAN, Wi-Fi, Bluetooth, Card Reader, HD Webcam
  • Color: Black
  • 1 Year Warranty

Price: ৳35,200.00

Post Comment

মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১

চলে এসেছে উইন্ডোজ ১১

 নতুন অপারেটিং সিস্টেমে ‘উইন্ডোজ ১১’ থাকছে বেশ কিছু নতুন ফিচার। তার চেয়েও বড় কথা বেশ কিছু পুরনো ফিচার বাদ পড়তে যাচ্ছে, যা গত ২০ বছরেও মাইক্রোসফট পুরোপুরি বাতিল করেনি। নতুনের পথে এগোতে হলে পুরনোকে ঝেড়ে ফেলতে হয়, সেটা ম্যাকওএসের মাধ্যমে অ্যাপল প্রমাণ করার পর মাইক্রোসফটও হাঁটছে সে পথেই।

windows 11

  • যেভাবে পাওয়া যাবে উইন্ডোজ ১১
‘উইন্ডোজ ১০’-এর মতো ‘উইন্ডোজ ১১’ও ব্যবহারকারীদের জন্য একেবারে বিনা মূল্যে দেবে মাইক্রোসফট। আগামী হেমন্তে অর্থাৎ অক্টোবরের শেষে বা নভেম্বরে উইন্ডোজ আপডেটের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের পিসিতে পৌঁছে যাবে উইন্ডোজ ১১। এর জন্য বাড়তি কিছু করতে হবে না। তবে ধারণা করা হচ্ছে, চাইলে ব্যবহারকারীরা আগে থেকেই আপডেট অপশন থেকে ১১ আপগ্রেড বন্ধ করে রাখতে পারবেন। নতুন অপারেটিং সিস্টেম শুরুতেই ব্যবহার না করাই ভালো, বিশেষ করে যদি সে পিসি হয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজের জন্য। আলাদা করে মাইক্রোসফট থেকে সরাসরি লাইসেন্স কিনে ডাউনলোড করেও ইনস্টল করা যাবে উইন্ডোজ ১১, ঠিক বর্তমানের মতোই।

  • উইন্ডোজ ১১ ব্যবহার করতে যা লাগবে
মাইক্রোসফট যে পুরনোকে পেছনে ফেলে উইন্ডোজকে নতুন করে সাজাতে চাইছে, তার বড় প্রমাণ ‘উইন্ডোজ ১১’ ব্যবহারের জন্য হার্ডওয়্যারের চাহিদা। নতুন অপারেটিং সিস্টেম আর ৩২ বিট প্রসেসর সমর্থন করবে না। ২০ বছর ধরে মাইক্রোসফট ৩২ বিট সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে, যা অন্তত ২০২১ সালে আর মানানসই নয়।

যদিও মাইক্রোসফটের ওয়েবসাইট অনুযায়ী অন্তত ১ গিগাহার্জ গতির ডুয়াল কোর ৬৪ বিট প্রসেসর, ৪ গিগাবাইট র‌্যাম, ডাইরেক্ট এক্স ১২ সমর্থিত গ্রাফিকস এবং ৭২০ পিক্সেল রেজল্যুশনের ডিসপ্লে থাকলেই উইন্ডোজ ব্যবহার করা যাবে, কিন্তু বাস্তবে চিত্রটি কিন্তু ভিন্ন। বর্তমানে মাইক্রোসফটের পেজ অনুযায়ী শুধু অষ্টম প্রজন্মের ইন্টেল কোর ও দ্বিতীয় প্রজন্মের এএমডি রাইজেন সিরিজের প্রসেসরসমৃদ্ধ পিসিতেই চলবে ‘উইন্ডোজ ১১’। অর্থাৎ মাইক্রোসফটের বর্তমান ফ্ল্যাগশিপ সারফেস স্টুডিও ২-তেও চলবে না ‘উইন্ডোজ ১১’। পরবর্তী সময়ে এ তালিকায় পুরনো প্রসেসর যুক্ত করার সম্ভাবনাও রয়েছে। এর সঙ্গে আছে আরো একটি চাহিদা—পিসিতে পুরনো ঘরানার বায়োস থাকলেও চলবে না, থাকতে হবে ইউইএফআই (ইউনিফাইড এক্সটেনসিবল ফার্মওয়্যার ইন্টারফেস)। অবশ্য প্রথম প্রজন্মের ইন্টেল কোর সিরিজের সময় থেকেই ইউইএফআই ব্যবহার হয়ে আসছে বায়োসের বদলে। সঙ্গে অবশ্যই থাকতে হবে ‘ট্রাস্টেড প্ল্যাটফর্ম মডিউল’ বা ‘টিপিএম ২.০’ এবং চালু করতে হবে সিকিউর বুট। সে জন্য অবশ্যই পিসির হার্ড ড্রাইভ বা এসএসডি হতে হবে জিপিটি পার্টিশন, পুরনো এমবিআর নয়। আর এসব চাহিদা একটা দিকেই নির্দেশ করে আর সেটি হলো মাইক্রোসফট চাইছে না আর পুরনো হার্ডওয়্যারের জন্য কাজ করুক এই নতুন উইন্ডোজ। এই নির্দেশনা অনুযায়ী হয়তো ভবিষ্যতে ষষ্ঠ প্রজন্মের ইন্টেল কোর এবং প্রথম প্রজন্মের রাইজেন প্রসেসরসমৃদ্ধ পিসি ‘উইন্ডোজ ১১’ পেতেও পারে; কিন্তু কোর ২ ডুয়ো থেকে শুরু করে পঞ্চম প্রজন্মের কোর সিরিজ বা এএমডির পুরনো এফএক্স সিরিজ পুরোপুরি বাদ যাচ্ছে।

  • নতুন ইন্টারফেস
ইতিহাসে প্রথমবারের মতো উইন্ডোজের স্টার্ট বাটন এবং মেন্যু ডিসপ্লের নিচের অংশের বাঁ কোনায় নয়, মাঝখানে থাকবে। স্টার্ট মেন্যু থেকে বাদ যাচ্ছে লাইভ টাইলস, তার বদলে মেন্যুতে পিন করা অ্যাপ, সর্বশেষ ব্যবহৃত ডকুমেন্টস, অ্যাপ মেন্যু এবং সার্চ বার দেখা যাবে।

ম্যাকের মতো উইন্ডোজেও যুক্ত হচ্ছে স্ন্যাপ লে-আউট। বর্তমানে প্রগ্রাম উইন্ডোজ শুধু ম্যাক্সিমাইজ আর মিনিমাইজ করা যায়, এবার থেকে বাটনটি চেপে ডিসপ্লের এক পাশে বা এক কোনায়ও সেটি পাঠানো যাবে। একাধিক অ্যাপ একসঙ্গে ডিসপ্লেতে নিজ থেকেই সাজানোর অপশনও যুক্ত করা হয়েছে।

স্ন্যাপ লে-আউট নিজের মতো করে সাজানো যাবে একাধিক মনিটরের জন্যও, আর মূল মনিটর থেকে টেনে অন্য মনিটরে অ্যাপ নিয়ে যেতে হবে না, অ্যাপকে একটি মনিটরে বেঁধে দেওয়া যাবে। মনিটর সরিয়ে ফেললেও সেটি সংরক্ষণ করা হবে, পরে আবার যুক্ত করলে নতুন মনিটরে চলে যাবে অ্যাপ।

এ ছাড়া ইন্টারফেসের ডিজাইনে ব্যবহার করা হয়েছে নতুন রং, বেশ কিছু জায়গায় ইন্টারফেস ঢেলে সাজানো হয়েছে। ‘উইন্ডোজ ১০’-এর সঙ্গে মিল নেই বলা যাবে না, বরং একে ‘উইন্ডোজ ১০’-এর বড় আপগ্রেড বলা যেতে পারে।

  • মাইক্রোসফট টিমস ও স্কাইপের পতন
‘উইন্ডোজ ১১’-এর বড় অংশ হতে যাচ্ছে মাইক্রোসফট টিমস। জনপ্রিয় রিমোট অফিস সফটওয়্যার স্ল্যাক, স্কাইপ আর জুমের বেশির ভাগ ফিচার নিয়ে তৈরি টিমস সফটওয়্যারটির সঙ্গে উইন্ডোজের প্রতিটি ফিচার সংযুক্ত থাকবে, ফলে আলাদা করে অন্যান্য অ্যাপ ইনস্টল করতে হবে না বলে দাবি করেছে মাইক্রোসফট।

মেইল অ্যাপ থেকে সরাসরি করা যাবে ভিডিও কল, টিমসের মেসেজ থেকে সরাসরি ক্যালেন্ডারে চলে যাবে মিটিং বা ডেডলাইনের সময়সূচি। ডেস্কটপ বা টাস্কবার থেকেই এক ক্লিকে করা যাবে ভিডিও কনফারেন্স। এরূপ আরো নানা ধরনের সুবিধাই থাকবে উইন্ডোজের সঙ্গে, যাতে ব্যবহারকারীরা কাজ করতে পারেন স্বাচ্ছন্দ্যে।

আর এর মাধ্যমে অবশ্য বাদ পড়ছে স্কাইপ। উইন্ডোজের সঙ্গে স্কাইপ আর দেওয়া থাকবে না, চাইলে অবশ্য ইনস্টল করে নেওয়া যাবে। কিন্তু মাইক্রোসফট যে ধীরে ধীরে স্কাইপকে বাদ দিয়ে টিমসকেই প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছে, তারই প্রথম বড় ধাপ এটিকে বলা যায়।

  • চলবে অ্যানড্রয়েড অ্যাপও
আর নয় ইমুলেটর, প্রয়োজন নেই ব্লুস্ট্যাকস। ‘উইন্ডোজ ১১’ ব্যবহারকারীরা সরাসরি অ্যানড্রয়েড অ্যাপ ও গেম চালাতে পারবেন তাঁদের পিসিতে। সরাসরি অ্যামাজন অ্যাপ স্টোর থেকে অ্যানড্রয়েড অ্যাপ ইনস্টল করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। তবে গুগল প্লেস্টোর যুক্ত করার ব্যাপারে এখনো কোনো কিছু জানা যায়নি, সম্ভাবনাও ক্ষীণ। তবে নিজে থেকে ব্যবহারকারীরা অ্যাপ ইনস্টল করতে পারবেন বলে জানা গেছে।

অ্যাপ সাইডলোডিং ফিচারটি কতটুকু সহজ বা কঠিন হবে সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি, তবে একেবারে সহজ হওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই ধারণা করা হচ্ছে। অ্যানড্রয়েড গেম পিসিতে ঠিক কতটা ভালোভাবে চলবে সেটা নিয়েও রয়ে গেছে সন্দেহ, কেননা বেশির ভাগ গেমেই দেওয়া হয়ে থাকে টাচ কন্ট্রোল আর বেশির ভাগ পিসিতেই টাচ স্ক্রিন দেখা যায় না।

  • অবশেষে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের মৃত্যু
‘উইন্ডোজ ৯৫’ থেকেই ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ব্রাউজারটি উইন্ডোজের অন্যতম বড় অংশ হিসেবে দেখা গেছে। এমনকি ‘উইন্ডোজ ১০’ থেকে এজ ব্রাউজার ব্যবহার শুরু হলেও ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের একটি সংস্করণ লুকানো অবস্থায় রয়ে গিয়েছিল। ‘উইন্ডোজ ১১’ থেকে আর ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের দেখা পাওয়া যাবে না। ক্রোমিয়াম ইঞ্জিনচালিত মাইক্রোসফট এজ হবে উইন্ডোজের ডিফল্ট ব্রাউজার।

ওয়েব ডিজাইনাররা দীর্ঘদিন ধরেই ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার সমর্থিত পেজ বানাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন, পুরনো এই ব্রাউজার সমর্থন না করলে ওয়েবসাইটের ডিজাইন সম্পূর্ণ হচ্ছিল না। ‘উইন্ডোজ ১১’-এর মাধ্যমে এই সমস্যার অবসান হতে যাচ্ছে।

  • গেমিং
মাইক্রোসফট খুব জোর দিয়ে চেষ্টা করছে গেমিং দুনিয়ায় নিজেদের অবস্থান শক্ত করতে। তাদের এক্সবক্স গেম পাস আলটিমেট সেবার মাধ্যমে নেটফ্লিক্সের মতো মাসিক চাঁদা দিয়ে শত শত গেম খেলা যাচ্ছে এক্সবক্স এবং পিসিতে। এবার গেম পাস সেবাটি উইন্ডোজের সঙ্গে আরো শক্ত করে যুক্ত করে দেওয়া হবে, যাতে গেম পাস থেকে বা এক্সবক্স স্টোর থেকে গেম খেলা যায় আরো সহজে। শুধু তা-ই নয়, পিসিটি যদি গেম চালানোর মতো শক্তিশালী না হয়ে থাকে, তাহলে নিজ থেকেই এক্সক্লাউডের মাধ্যমে গেমটি ক্লাউড সার্ভার থেকে চলবে, তার জন্য বাড়তি কোনো সেটআপেরও প্রয়োজন হবে না। মাইক্রোসফটের দাবি, গেম পাস আলটিমেট সেবা চালু করার পর শুধু গেমের ওপর ক্লিক করলেই হবে।

আজকাল প্রচুর ডেস্কটপ মনিটর ও ল্যাপটপে এইচডিআর সমর্থিত ডিসপ্লে ব্যবহার হচ্ছে, অথচ বেশির ভাগ পুরনো গেমেই সেটার সমর্থন নেই। ব্যবহারকারীরা চাইলে ‘উইন্ডোজ ১১’-তে থাকা অটো এইচডিআর ব্যবহার করে সেসব গেমে এইচডিআরের স্বাদ নিতে পারবেন।

  • নতুন ধরনের পিসির জন্য প্রস্তুতি
ট্যাবলেটে উইন্ডোজ চলছে আজ কয়েক দশক ধরে; কিন্তু একেবারে কি-বোর্ড মাউস ছাড়া চলার জন্য তৈরি উইন্ডোজ এটাই প্রথম। সামনের দিনগুলোতে টাইপ কভার ছাড়া সারফেস এবং অন্যান্য উইন্ডোজচালিত ট্যাবলেটের দেখা মিলবে। মাইক্রোসফটের বেশ কিছু ভাঁজযোগ্য ডিভাইসের পরীক্ষামূলক সংস্করণ তারা বিগত বছরগুলোতে দেখালেও সেগুলো এখনো বাজারে আনেনি, সম্ভবত সরাসরি ‘উইন্ডোজ ১১’ ইনস্টল করে তবেই বাজারে আনার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল তারা। মাইক্রোসফটের ভাষ্য অনুযায়ী সামনের দিনগুলোতে কম্পিউটারের সংজ্ঞা অনেকটাই বদলে যাবে, এর সঙ্গে তাল মেলানোর জন্যই তারা প্রস্তুত করেছে নতুন এই উইন্ডোজ।

সূত্রঃ কালের কন্ঠ 

See More:

1. Download free pdf books

Post Comment

রবিবার, ১১ জুলাই, ২০২১

মাইজিপি অ্যাপে কভিড-১৯ টিকার রেজিস্ট্রশন যাবে

 নিজেদের দায়িত্বশীল কার্যক্রমের পরিধি বিস্তারের লক্ষ্যে ওয়ান-স্টপ ডিজিটাল সমাধান ‘মাইজিপি’তে জাতীয় টিকাদান কার্যক্রম পরিচালনা পোর্টাল ‘সুরক্ষা’ (https://surokkha.gov.bd/) অন্তর্ভুক্ত করেছে গ্রামীণফোন।

এর ফলে মাইজিপি ব্যবহারকারীরা এখন কভিড-১৯ টিকার জন্য নিবন্ধন করতে বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত এ পোর্টালটি সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায় গ্রামীণফোন।


covid19

মাইজিপি ব্যবহারকারীরা অ্যাপের ‘হোয়াটস নিউ’ সেকশনে সুরক্ষা পোর্টালে প্রবেশের জন্য নতুন যুক্ত হওয়া কার্ডটি পাবেন। কার্ডটিতে ক্লিক করার পর ব্যবহারকারীদের সরাসরি ‘সুরক্ষা’ পোর্টালের ওয়েবপেজে নিয়ে যাওয়া হবে, যেখানে তারা জীবন রক্ষাকারী কভিড-১৯ টিকার নিবন্ধন করতে পারবেন।
 
গ্রামীণফোন মনে করে, এ উদ্যোগটি টিকা নিবন্ধনের সার্বিক প্রক্রিয়াকে আরও সহজ করবে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্প বাস্তবায়নের প্রয়াসে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। সুরক্ষা পোর্টালের মাধ্যমে টিকা নিবন্ধনের স্ট্যাটাস আপডেট দেখা যাবে, টিকা কার্ড ও টিকা দেওয়ার পরে সনদ সংগ্রহ করা যাবে এবং সম্পূর্ণ কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে। মাইজিপি’তে সুরক্ষা পোর্টালের সংযোজন, গ্রামীণফোনের গ্রাহকদের এ সংকটকালীন সময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয়তা পূরণে সহায়তা করবে বলে প্রত্যাশা করা যাচ্ছে।
 
এ নিয়ে গ্রামীণফোনের চিফ ডিজিটাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজি অফিসার সোলায়মান আলম বলেন, দীর্ঘমেয়াদে কভিড-১৯ -এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভ্যাকসিনই আমাদের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার, আর তাই সবার মধ্যে ভ্যাকসিন (টিকা) নিয়ে সচেতনতা তৈরিতে আমাদের আরও বেশি জোর দিতে হবে। সব মানুষকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনা তুলনামূলক কঠিন একটি কাজ। গ্রামীণফোন এর অফিশিয়াল অ্যাপ মাইজিপি’তে সুরক্ষা পোর্টালকে সংযুক্ত করে বিশাল টিকা কার্যক্রমে ভূমিকা রাখার চেষ্টা করবে। মাইজিপি অ্যাপের মাধ্যমে অধিক সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছানো সম্ভব হবে। একটি মহামারিমুক্ত ভবিষ্যতের প্রত্যাশায়, যা কোভিড টিকার নিবন্ধনকে আরও সহজ করবে। আমরা আশাবাদী, এখন আমাদের ব্যবহারকারীদের জন্য টিকার নিবন্ধন করা আরও সুবিধাজনক হবে। যাদের প্রযুক্তি বিষয়ে বোঝাপড়া একটু কম, তারাও এখন সহজেই মাত্র কয়েকটি ক্লিক করেই টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন।
 
স্মার্টফোনে মাইজিপি অ্যাপটি http://mygp.li/spoওয়েবপেজ থেকে ডাউনলোড করা যাবে।
 
এমন সময়োপযোগী উদ্যোগ ছাড়াও প্যাকেজ প্ল্যান, অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স, এফএনএফ, ওয়েলকাম টিউন, মিসড কল অ্যালার্টসহ বিনোদনমূলক বিভিন্ন ফিচার এবং আরও সহজ সমাধান সম্পর্কে গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জানাতে ওয়ান-স্টপ সমাধান হিসেবে কাজ করে মাইজিপি। গ্রাহকদের সহজে কানেকশন প্ল্যান এবং বিভিন্ন সময় রিওয়ার্ড ও অন্যান্য সুবিধা উপভোগের ক্ষেত্রে নিবেদিত প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করে মাইজিপি।

সুত্রঃ https://www.kalerkantho.com/

Post Comment

বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১

সরকারি পর্যায়ে টিকটক বন্ধের আলোচনা চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, সরকারি পর্যায়ে টিকটক বন্ধের আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে পরিবারের কর্তাব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছি ছেলে-মেয়েরা কোথায় কী করছে তা দেখবেন না? টিকটক করছে, লাইকি করছে, ভিডিও করছে, মাদক গ্রহণ করছে, নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এগুলো অভিভাবকদেরও দেখতে হবে। এরপর না পারলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে খবর দেবেন।

টিকটক বন্ধের আলোচনা


বুধবার রাজধানীর পুরাতন কারাগার কনভেনশন হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে কারাবন্দিদের ১০০ সন্তানকে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।


এনআইডি প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এনআইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র) নিয়ে যেসব কথা হচ্ছে তা অবান্তর। আমরা জেনে বুঝেই এনআইডি সেবাকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে আনছি। এখানে সবার মতামত রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শও নেয়া হয়েছে। সুরক্ষা সেবা বিভাগে আসলে সেবা নিয়ে কোনো ধরনের জটিলতা তৈরি হবে না বরং এনআইডি সেবা এখন যথাস্থানে আসছে।

সূত্রঃ ডিজি বাংলা

Post Comment

বুধবার, ২৩ জুন, ২০২১

এম আই টিভি বক্স এস, শাওমি( Mi Box S)

 এম আই টিভি বক্স এস, শাওমি থেকে সর্বশেষ রিলিজ হয়েছে। এটিতে একটি শক্তিশালী প্রসেসর এবং সর্বশেষতম অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণ রয়েছে। এমআই বক্স এস একটি ডেডিকেটেড ভয়েস অনুসন্ধান ও নেটফ্লিক্স বোতাম এবং গুগল সহকারী সহ আসে। আপনি যদি নতুন একটি স্মার্ট টিভি বক্স কেনার পরিকল্পনা করে থাকেন তবে শাওমি এমআই টিভি বক্স এস আপনার জন্য সেরা পছন্দ হতে পারে।

MI TV BOX



মি বক্স এস এর সাথে ঘরে বসে পণ্য এবং বিনোদনের জগতের সাথে সংযোগ স্থাপন করুন সর্বশেষতম অ্যান্ড্রয়েড টিভি 8.1 এর সাথে।  এটি চালানো বা ব্যবহার করা খুবই সহজ, এটি ভয়েস কমান্ড সমর্থন করে এবং আপনার প্রিয় অ্যাপ্লিকেশন যেমন নেটফ্লিক্স, ভিডিডিউ, ইউটিউব, স্লিংটিভি এবং আরও অনেক কিছু! এর অত্যাশ্চর্য ফিচার হচ্ছে 4K এইচডিআর ভিজ্যুয়াল এবং ডলবি ডিটিএসের অভিজ্ঞতা অর্জন করা। আপনার প্রিয় টিভি শো দেখুন, গেম খেলুন, সংবাদ দেখুন বা রেডিও শুনুন। এমআই বক্সে এছাড়াও আপনার ব্যক্তিগত ইউটিউব এবং গুগল প্লে আপনার পছন্দসই বিষয়ের উপর ভিত্তি করে ভিডিও সাজেষ্ট  করে।

বর্তমান বাজার মুল্যঃ  ৳5,700

Order Now


Post Comment